জয়পুরের সুরঙ্গ পথে

হঠাৎ চোখ পড়ল একটা নির্দেশিকার দিকে। লেখা আছে "way to tunnel"। আমার আবার এসবের দিকে ঝোঁকটা একটু বেশি। তাই কাল-বিলম্ব না করে সন্ময়কে বললাম সুরঙ্গে যাবে? সন্ময় আমাদের দলের এক প্রতিভা বলতে পারা যায়। কোন বিষয়ে তার না নেই। সেনাবাহীনিতে যাওয়াই ওর জীবনের মুল উদ্দেশ্য। সে সূত্রে দীর্ঘদিন শরীর চর্চার মধ্যেই ছিল। বছর দুয়েক হল, সে পাঠ চুকিয়ে দিয়েছে। ধীরে ধীরে শরীরের বারোটা বাজছে। সারাদিন একভাবে বসে থেকে থেকে সবকটা জয়েন্টে জং ধরিয়েছে। এতদ সত্ত্বেও উন্মাদনার পারায় এতটুকুও ভাটা পড়েনি। তাই স্বভাবসুলভ ভঙ্গিতেই এদিক ওদিক কিছু না ভেবেই, একটু সুর কেটে উত্তর দিল "চ__লো__"। একে একে আমরা ৭ জনে সুরঙ্গে নাবতে শুরু করলাম। পথ বেশ সরু। এক একটা সিঁড়ির উচ্চতাও অনেকটা। সাবধানে নিচে নাবতে হয়। গল্পটাকে এগিয়ে নিয়ে জাওয়ার আগে এটা বলা দরকার আমরা এই সুরঙ্গ মুখে এলাম কিভাবে। সম্পূর্ণ নিবন্ধ